Search Recipes

মগজ ভুনা

গরুর মগজ ভুনার সহজ এবং চমৎকার একটি রেসিপির জন্য নিচের লিংকে  ক্লিক করুন
http://vulusrecipe.blogspot.com/2010/11/beef-brain-masala-eid-recipe.html

Hilsha korma / ইলিশ কোরমা

Eid desserts : Chocolate Tree

CLick on image for larger and Clear view



Crispy Beef Slice Fry / ক্রিসপি বিফ স্লাইস ফ্রাই

উপকরনঃ 
চাকা মাংস আধ কেজি, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, জিরাগুড়ো ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুড়ো ২ চা-চামচ, গরম মসলা গুড়ো ১ চা-চামচ, সিরকা ২ টেবিল চামচ, সয়াসস ১ টেবিল চামচ, লবন ১ চা-চামচ, তেল- ভাজার জন্য। কর্ন ফ্লাওয়ার ৪ টেবিল চামচ। গোল মরিচের গুড়ো ১ চা-চামচ।

রন্ধন প্রনালীঃ

চাকা মাংস চারকোনা করে পাতলা করে স্লাইস করে পাটার উপর রেখে পুতা দিয়ে একটা ছ্যাঁচা দিয়ে নিন। ভালো করে ধুয়ে চিপে পানি ঝরিয়ে একটা বাটিতে রাখুন। কর্ন ফ্লাওয়ার ও তেল ছাড়া বাকি মসলা দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে রেখে দিন ঘন্টা-খানিক। কর্ন ফ্লাওয়ার পানি দিয়ে ঘন গোলা করে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে কর্ন ফ্লাওয়ারে একটি একটি করে মাংসের টুকরো চুবিয়ে লালচে করে ভেজে তুলুন।

অল্প সময়ে নেহারি/পায়া রান্না করার রেসিপি

উপকরনঃ 
১ কেজি পায়া, ১ টেবিল চামচ আদাবাটা, ১ টেবিল চামচ রসুন বাটা, মরিচ গুড়ো ১ চা-চামচ, হলুদ গুড়ো সামান্য, জিরা গুড়ো ১ টেবিল চামচ, ২টা তেজপাতা, গোলমরিচ ১৫/২০টা, এলাচ ৫/৬টা ছেঁচে নিবেন, দারচিনি কয়েক টুকরো, তেল ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজকুচি ১ টেবিল চামচ, আস্ত শুখনামরিচ ৩/৪টা। লবন স্বাদমত।

রন্ধন প্রনালীঃ 
পায়ার হাড্ডি ভাল করে ধুয়ে ৫ লিটারি বা এর চাইতে বড় প্রেসার কুকারে রাখুন। পেঁয়াজকুচি ও তেল ছাড়া বাকি সব মসলা দিয়ে দিন। এমন ভাবে পানি দিন যাতে হাড্ডিগুলো ঢেকে যায়। কুকারটি চুলায় বসিয়ে আগুন বাড়িয়ে দিন। ১টি সিটি বাজলে আগুন কমিয়ে দিন। এ ভাবে ৪/৫ ঘন্টা রাখবেন। অবশ্যই ২০/২৫ মিনিট পর পর কুকার খুলে পানির পরিমান দেখবেন। পানি কমে গেলেই পানি দিবেন। এবং নেড়ে দিবেন। নাহলে কিন্তু পানি শুখিয়ে পুড়ে ছাই হয়ে যাবে। ৪/৫ ঘন্টা পর ঝোলটা দেখে নিবেন কতটা ঘন আপনি রাখতে চান সেটা আপনার রুচির উপর নির্ভর করে। একটা পাত্রে তেল গরম করে শুখনা মরিচ ও পেঁয়াজ ছেড়ে দিন। পেঁয়াজ লাল করে বেরেস্তা ভেজে পায়ার উপর তেল সহ ছেড়ে দিন।তৈরী হয়ে গেলো মজাদার নেহারি।

Source/Credit: Click here

পট রোস্টেড চিকেন (সঞ্জীব কাপুর) / Roasted Chicken

উপকরণ: 
চামড়াসহ মুরগী - ৫০০গ্রাম 
মধু - ৩ টেবিল চামচ 
পাঁচফোড়ন পাউডার - ২ চা চামচ 
ওয়েস্টার সস - ২ টেবিল চামচ 
লাল মরিচ গুড়া - ২ চা চামচ 
সয়া সস - ২ টেবিল চামচ 
লবন 
রাইস  ভিানেগার - ৩ টেবিল চামচ
তেল - ২ টেবিল চামচ


প্রনালী:
মুরগী ভাল করে পানিতে ধুয়ে নিন। একটি পানি শুষে নিতে পারে এমন কাগজ দিয়ে ভাল করে মুরগীর গ থেকে পানি শুকিয়ে নিন। ফ্যাট ফেলে দিন। একটি বড় সসপ্যানে ৬/৮ কাপ পানি দিন। পানি ফুটতে শুরু করলে চুলা থেকে নামান। মুরগীটিকে সসপ্যানের গরম পানিতে দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ২০ মিনিট রাখুন। অন্য একটি মধু ,পাঁচফোড়ন পাউডার, ওয়েস্টার সস ,মরিচ গুড়া, সয়া সস, রাইস ওয়াইন ভিানেগার ও লবন ভালভাবে মিশান। গরম পানি থেকে মুরগী টাকে তুলে নিয়ে ভাল করে পানি শুকিয়ে নিন absorbent  কাগজ দিয়ে। 

পূর্বে মেখে রাখা সস ও মসলার মিকচার মুরগীর উপর ভাল করে ব্রাশ করুন এবং ২/৩ ঘন্টা ফ্রিজে রেখে দিন মেরিনেট হবার জন্য। এরপর মুরগীটিকে ফ্রিজ থেকে বের করে ৮ থেকে ১০ পিস করুন মিডিয়াম সাইজে। একটি পাএে তেল গরম করে মেরিনেট করা মুরগীর টুকরাগুলো দিয়ে কিছুক্ষণ উল্টেপাল্টে ভাজুন। এরপর আগুন কমিয়ে দিয়ে ৫/৭ মিনিট রান্না করুন অথবা যতক্ষণ না মুরগী পুরোপুরি হয়ে আসে ততক্ষণ রান্না করুন। মাঝে মাঝে পিসগুলো উল্টেপাল্টে দিন।  হয়ে গেলে পরিবেশন করুন। আপনি চাইলে প্রি-হিটেড ওভেনে ১৮০ ডিগ্রী তাপমাএায় মুরগী ২০ মিনিট রান্না করতে পারেন।

খাসির মোগলাই



চিকেন লাহোরী কাবাব / Chicken lahori kabab

প্রস্তুতি সময়কাল: ২০-২৫ মিনিট
সার্ভিং: ৪ জন

উপকরণ:
মুরগী ১টি : ৮০০ গ্রাম
মরিচ গুড়া : ১ চা চামচ
লেবুর রস : ১ চা চামচ
লবন : স্বাদ অনুযায়ী
পেয়াঁজ : ২ টি
চাট মসলা : আধা চা চামচ
লেবুর টুকরা : ৬ টি





মেরিনেডের উপকরণ:
দই: ১ কাপ
আদা বাটা : ১ টেবিল চামচ
রসুন বাটা: ১ টেবিল চামচ
মরিচ গুড়া : ১ চা চামচ
লবন : স্বাদ অনুযায়ী
সরিষার তেল : ২ চা চামচ
গরম মসলা : ২ চা চামচ
বাটার : প্রয়োজন অনুযায়ী








পদ্ধতি:
মুরগিটিকে চার টুকরা করে কাটতে হবে।এতে পরিমিত লবন,লেবুর রস ও মরিচ গুড়া মিশিয়ে আধা ঘন্টা ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। পেয়াঁজ গোল করে কুচি করে কেটে তা ছাড়িয়ে নিতে হবে।

মেরিনেডের জন্য দইকে ছেঁকে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। দইয়ে এরপর আদা বাটা ,রসুন বাটা, মরিচ গুড়া ,লবন, লেবুর রস, গরম মসলা ও সরিষার তেল মিশিয়ে মিক্সড করতে হবে। এই মিশ্রন মুরগির পিসগুালোতে লাগিয়ে পুনরায় ৪-৫ ঘন্টা  ফ্রিজে রেখে দিতে হবে।এরপর তা ওভেনে ২০০ ডিগ্রী প্রি-হিট করে তাতে শিকে করে ১০-১৫ মিনিট গ্রিল করতে হবে। কাবাব হয়ে গেলে তাতে বাটার মাখিয়ে আরো ৪ মিনিট গ্রিল করতে হবে। হয়ে এলে তাতে চাট মসলা, পেয়াঁজ রিং ও লেবুর টুকরোসহ পরিবেশন করতে হবে।

কুরবানির গোশত সংরক্ষণর টিপস

Click on image And save on ur pc

মুরগীর মুলতানি কোরমা

CLick on image for larger view

নান্না মিয়ার রেসিপি : লাবাং

উপকরণ:
মিষ্টিদই,
গরম মসলা,
চিনি,
পরিমাণমতো লবণ,
মাঠা।


প্রণালি: 
মাঠার সঙ্গে মিষ্টিদই, গরম মসলা, চিনি, লবণ পরিমাণমতো মিশিয়ে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রাখতে হবে। এরপর ব্লেন্ড করে তৈরি করতে হবে লাবাং।

Eid ul adha recipe : নান্না মিয়ার মোরগ পোলাও

CLick on image for larger view

স্টাফড আলুর রসা

উপকরণ:

আলু: ৪ টুকরা
ভাংগা কাজু: ৫০ গ্রাম
কিশমিশ: ২০ গ্রাম
ছানা : ৫০  গ্রাম
কাচা লংকা, আদা,নুন:  স্বাদমত
জিরাগুড়া : ৫  গ্রাম
লেবুর রস : ১ চামচ
পেয়াঁজ: ১০০  গ্রাম
কাচা লংকা :  গ্রাম
আদা: ৫০  গ্রাম
লংকা গুড়া : ১০  গ্রাম
ধনেপাতা : স্বাদমতো
আদা-রসুন বাটা: ২৫  গ্রাম
সরসের তেল: ১০০ মিলি
গরম মসলা গুড়ো , কাজু বাটা : পরিমানমত
পাচঁফোড়ন ফোড়নের জন্য।


প্রণালী:
আলু অর্ধেক করে ভিতরের অংশ স্কুপ করে বের করে রাখুন। ছাঁকা তেলে আলু ভেজে রাখুন। কাজু-কিশমিশও অল্প তেলে নেড়ে নিন। ছানা, কাজুবাদাম ও কিশমিশ ও অন্যান্য উপকরণ ভাল করে মাখুন।ছানার পুর আলুর মধ্যে ভরুন।ফ্রাইংপ্যানে গিয়ে গরম তেলে পাচঁফোড়ন দিন। তারপর পেয়াঁজ নেড়েচেড়ে আদা , কাচা লংকা দিন। টমেটো দিয়ে কষে নিন।তেল বের হতে শুরু করলে কাজুবাদাম বাটা দিয়ে নুন জিরেগুড়া মিশান।সামান্য জল দিন। পুর ভরা আলু দিয়ে ২ মিনিট আচেঁ রাখুন। নামানোর আগে ধনেপাতা মেশান।

ম্যাঙ্গো আইসক্রিম / Mango Icecream

কি কি লাগবে:
১ ক্যান ম্যাঙ্গো পাল্প
১ ক্যান কনডেন্সন্ড মিল্ক
২ চা চামচ গোলাপ জল
১ ক্যান ঠান্ডা হুইপড ক্রিম
হাফ কাপ কাজু ও পেস্তা বাদামের কুচি


যেভাবে বানাবেন:

ম্যাঙ্গো পাল্প, কনডেন্সন্ড মিল্ক এবং ঠান্ডা হুইপড বা ভাল করে ফেটানো ক্রিম একসংগে মিশিয়ে মিক্সিতে অনেকক্ষণ ঘেটেঁ নিন। এর মধ্যে গোলাপ জল,কাজু ও পেস্তার কুচি ছড়িয়ে দিয়ে ভাল করে নেড়ে নিয়ে মিশ্রণটা একটা এয়ার টাইট কৌটে ভরে একরাত ফ্রিজে রেখে দিন। পরদিন বের করে আবার কিছুক্ষণ মিক্সিতে ঘেটেঁ ফ্রিজে ঢুকিয়ে দিন। কয়েক ঘন্টা পর বের করে আইসক্রিম বোলে আইসক্রিমের প্রতিটি স্কুপের উপর লিচুর কুচি ছড়িয়ে সার্ভ করুন। লিচুর বদলে আম বা চকোলেটের কুচিও ছড়াতে পারেন।

কালো আংগুরের ফুচকা

উপকরণ:
রেডিমেড ফুচকা : পরিমানমতো
কালো আংগুরের জুস : ১ লিটার
তেতুলের পাল্প : ২ টেবিল চামচ
লবন : পরিমানমতো
কালো লবন : আধা চা চামচ
জিরা গুড়া : ১ টেবিল চামচ
লাল মরিচ গুড়া : ১ টেবিল চামচ
লেবুর রস : ১ টেবিল চামচ
পুদিনা পাতা : পরিমানমতো
ধনিয়া পাতা  : পরিমানমতো
কাচা মরিচ  : পরিমানমতো
অন্কুরিত মুগ ডাল
চটকানো সিদ্ধ আলু



প্রণালী
ধনে পাতা, পুদিনা পাতা এবং কাচা মরিচ মিক্সারে দিয়ে পেস্ট করে নিন।
এরপর এর সাথে মিশান কালো আংগুরের জুস, তেতুলের পাল্প , [link|http://en.wikipedia.org/wiki/Black_salt|কালো লবন]  ,লবন,  লেবুর রস, জিরা গুড়া , লাল মরিচ গুড়া । ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করুন। এরপর একটি একটি করে ফুচকা নিন। মাঝখানে ফুটো করে নিয়ে আংগুরের জুসের মিক্সার দিন। এর উপর অন্কুরিত মুগ ডাল, চটকানো সিদ্ধ আলু দিয়ে পরিবেশন করুন।

পিন্ক পামেলা জুস

উপকরণ:
স্ট্রবেরি সিরাপ বা রোজ সিরাপ : ৫ মিলি
আখের রস : ১০০ মিলি
টনিক ওয়াটার : ৫০ মিলি
লেমন জুস : ৫ মিলি
তরমুজের জুস: ১০০ মিলি
আইস ৪ কিউব



প্রণালী:
প্রথমে স্ট্রবেরি সিরাপ বা রোজ সিরাপ একটি গ্লাসে ঢালুন।তারপর লেমন জুস দিন। স্ট্রবেরি সিরাপ ও লেমন জুস একটু থিতিয়ে গেলে আখের রস মিশান। তারপর টনিক ওয়াটার দিয়ে তরমুজের জুস আস্তে  আস্তে করে ঢালুন। ইচ্ছাঅনুযায়ী গার্নিশ  করে আইস কিউব দিয়ে সার্ভ করুন।

শুগারকেন জুস উইথ বেসিল

উপকরণ:
আখের রস: ১০০ মিলি
বেসিল সিড বা তোখমা : ১ চামচ
লেবুর রস : হাফ চামচ
মধু : ৫ মিলি
শসার জুস : ৫০ মিলি
গ্রিন টি : ১০০ মিলি
আইস ৪ কিউব

প্রণালী:
মকটেল তৈরির কিছুক্ষণ আগে বেসিল সিড জলে ভিজিয়ে রাখুন।
প্রথমে গ্লাসে মধু দিয়ে লেবুর রস ও শসার জুস মিক্স করুন। তারপর ঠান্ডা গ্রিন টি দিন । এবারে আখের রস দিয়ে ভেজানো বেসিল সিড ধীরে ধীরে মেশান। টেবিল চামচ উল্টো করে ধরে তার উপর দিয়ে বেসিল সিড ধীরে ধীরে ঢালুন। সার্ভ করার আগে আইস কিউব মিশিয়ে দিন।

কিমা লেবু ডাল


উপকরণ :
গোশতের কিমা - ২০০গ্রাম
আদা বাটা - ১ চা চামচ
রসুন বাটা - ১ চা চামচ
পেঁয়াজ কুচি - ২ টি
কাচা মরিচ কুচি - ২ টি
গরম মসলা - আধা চা চামচ
জিরা গুড়া - আধা চা চামচ
ধনিয়া গুড়া - আধা চা চামচ
ধনিয়া পাতা কুচি
লবন
তেল


প্রনালী :
প্রথমে একটি পাএে ডাল আর আদা বাটা এক সাথে মিশিয়ে পানিতে সিদ্ধ করে নিন। এবার গোশতের কিমার সাথে একে একে আদা বাটা,রসুন বাটা,পিয়াজ কুচি, কাঁচামরিচ কুচি,গরম মসলা গুড়া,জিরা গুড়া ,ধনিয়া গুড়া এবং লবন মিশিয়ে ভাল করে মেখে নিন। এরপর কড়া্ই এর গরম তেলে গোল গোল করে কিমা ভেজে একটি বাটিতে তুলে রাখুন। ডাল সিদ্ধ হয়ে গেলে স্ট্রেনারে ভাল করে ছেকে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার ডালের পানি কড়াইতে ঢেলে একে একে কাচা মরিচ ,আদা কুচি,লবন ,ঘি, গোল করে কাটা লেবু  এবং পনির টুকরো দিয়ে নেড়ে ঢাকনি দিয়ে ঢেকে দিন। কিছুক্ষণ পর ডালটি একটি পাএে ঢেলে  উপরে ধনিয়া পাতা কুচি এবং আগে ভেজে রাখা কিমা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন সুস্বাদু লেবু ডাল।

মাছের শাহি কালিয়া / shahi rui kalia

উপাদান :
রুই বা কাতলা মাছ - আধা কেজি
ঘি - ১২৫ গ্রাম
দারচিনি - দুই টুকরা
এলাচি - ৩ টা
লবংগ - ৪/৫ টা
মরিচ - দুই চা চামচ
আদা - আধা টেবিল চামচ
পেঁয়াজ - দুই টেবিল চামচ
হলুদ - আধা চা চামচ
বেসন - দুই টেবিল চামচ
তিলের তেল - দেড় টেবিল চামচ
মৌরি - ১ টেবিল চামচ
জিরা - ১ টেবিল চামচ
লবন - স্বাদ অনুযায়ী

প্রনালী :

মাছ খন্ড খন্ড করে কেটে ধুয়ে বেসনে মাখিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এবার তাতে তেল ও টক দই মাখিয়ে ১ ঘন্টা রেখে দিতে হবে।এরপর সেগুলো আবার বেসনে মাখিয়ে ধুতে হবে।এবার মাছের টুকরোগুলোকে মৌরি ও জিরার পানিতে ধুয়ে লবন , বাটা মসলা, হলুদ দিয়ে মাখিয়ে ঘিয়ে ভাজতে হবে।  তারপর লবংগে বাগার দিয়ে পরিমানমতো পানি ঢেলে কষিয়ে কোরমার মত করতে হবে।রান্নার শেষ দিকে পেঁয়াজ ও সামান্য রসুন ঘিয়ে ভেজে পিষে বাটা মসলাসহ ঢেলে দিতে হবে। এরপর উপরে মসলার গুড়ো ছিটেয়ে দিতে হবে। 

মিষ্টি দই / Sweet Curd reciipe


উপকরণ:

দুধ  - ৩ লিটার
চিনি - ১ কাপ
দই দানা -  ১ টেবিল চামচ
দই - ১ কাপ


প্রনালী:
প্রথমে দুধ ভাল করে জ্বাল দিয়ে কিছুটা ঘণ করতে হবে।এমনভাবে নাড়তে হবে যেন দুধে সর না পড়ে। দই দানা দুধে ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে। দুধ ছেকে দই দানা ফেলে দিয়ে শুধু দুধ হাড়ির দুধের সাথে মেশাতে হবে। দই দুধ দিয়ে পাতলা করে ঘন দুধের সংগে মিলিয়ে সব দুধ একটি পাএে ঢেলে যে কোনও গরম জায়গায় ঢেকে রেখে দিতে হবে। ৯-১০ ঘন্টা পরে দেখা যাবে দুধ জমে তৈরি হয়েছে সুস্বাদু দই। এরপর ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।

ব্রাউনি / Brownie

উপকরণ :
ময়দা - এক কাপ
গুড়া দুধ - দুই টে চামচ
বেকিং পাউডার - এক চা চামচ 

ডিম  - ৪টা
চিনি - এক কাপ
ভ্যানিলা এসেন্স - ২ চা চামচ
কোকো পাউডার
বাটার 

প্রনালী
ময়দা, গুড়া দুধ, বেকিং পাউডার একসাথে শুকনা অবস্থায় মিলিয়ে রাখুন।বাটার গলিয়ে নিয়ে এর সাথে মিশিয়ে নিন ভাল করে।ডিমের সাদা অংশে চিনি দিয়ে এগ বিটারে বিট করে নিন ভাল করে।এরপর ডিমের হলুদ অংশ দিয়ে ফেটান।এরপর ভ্যানিলা এসেন্স ও কোকো পাউডার দিয়ে আবার বিট করুন। এবার সব কিছু একসাথে বিট করুন। মাইক্রোওভেনে ৬ মিনিট রেখে নামিয়ে ফেলুন মজাদার ব্রাউনি ।

New Blog : Pitha Puli Payes

Check out our New blog.

New Tasty Pitha puli recipes will publish in the following blog.

http://pitha-puli-payes.blogspot.com

Magur Macher Vorta

Kochi Amer Pata Vorta

jam roll / জ্যাম রোল

জ্যাম রোল

উপকরণ:

১। ডিম - ৪টি
২। ময়দা - আধা কাপ
৩। চিনি - আধা কাপ
৪। জ্যাম - ৪ টেবিল চামচ
৫। গুড়া দুধ - ১ টেবিল চামচ
৬। বেকিং পাউডার - আধা চা চামচ
৭। যে কোন ফ্লেভার এসেন্স - আধা চা চামচ


প্রনালী:
ডিম ও জ্যাম বাদে সব উপকরণ একএে মিশিয়ে নিন। ওভেন প্রি হিটে দিয়ে ডিমের সাদা অংশ বিট করে ফোম তৈরি করে কুসুম দিয়ে অল্প বিট করতে হবে। অল্প অল্প করে ময়দার মিশ্রণ দিয়ে অল্প বিট করে মিশ্রণটি বেকিং ট্রেতে ঢেলে ১৮০ ডিগ্রী সেলসিয়াসে ২০-২৫ মিনিট বেক করতে হবে।  পলিথিনে তেল মাখাতে হবে এবং ট্রের কেকটি উল্টে পলিথিনে রেখে কেকে জ্যাম মাখাতে হবে।তারপর এই পলিব্যাগটাসহ কেকটি মোড়াতে হবে। ১০ মিনিট ডিপ ফ্রিজে রেখে বের করে ছুরি দিয়ে কেটে পরিবেশন করুন।

গ্রিল্ড আলু লবন এবং ভিনেগার সহকারে

উপকরণ:
সাদা ভিনেগার  - ২কাপ
লো স্টার্চ আলু 1/4 ইঞ্চি স্লাইস করে কাটা - ৪৫০ গ্রাম
এক্সর্টা ভার্জিন ওলিভ ওয়েল - ২ টেবিল চামচ
ফ্লেকি সি সল্ট - ১ চা চামচ
ফ্রেশলি গ্রাউন্ড গোল মরিচ -  1/4  চা চামচ
ফেনেল লবন স্বাদের জন্য - অপশনাল


প্রনালী :
মাঝারি আকারের সসপ্যানে ভিনিগার ঢেলে নিন। তাতে স্লাইস করা আলুগুলো দিন এমনভাবে যাতে ভিনেগারে ডুবে থাকে। সিদ্ধ হতে দিন। প্রথমবার বলক আসলে চুলার আগুন কমিয়ে দিন এবং আরো ৫ মিনিট রাখুন। খেয়াল রাখবেন আলু যেন বেশি সিদ্ধ না হয়। বেশি সিদ্ধ হলে গ্রিল করার সময় শেপ ঠিক থাকবে না। চুলা বন্ধ করুন। আলুগুলোকে ভিনেগারে ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা হতে দিন। এরপর ভালভাবে পানি ঝরিয়ে নিন। আলতো হাতে ওলিভ ওয়েল,লবন,গোল মরিচ গুড়ো মিশান আলুতে।

মিডিয়াম হাইতে গ্রিল গরম করুন। আলুগুলো
এক সাইড গ্রিল হতে দিন ৩-৫ মিনিট  গোল্ডেন না হওয়া পর্যন্ত। এরপর উল্টিয়ে দিয়ে ওপর সাইড ৩-৫ মিনিট গ্রিল করুন। অল্প লবন ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

ইফতারিতে চানা কাবাব / Channa kabab recipe for Iftar

উপকরণ
সাদা চানা সেদ্ধ - ২ কাপ
কাচা মরিচ কুচি করা - ৪টি
কুচি করা পিয়াজ - ১ টি
ধনিয়া পাতা কুচি - ২ টেবিল চামচ
ডিম - ১টা
গুড়া মরিচ - ১ টেবিল চামচ
লবন
ব্রেড ক্রাম্ব
তেল



প্রনালী
একটা বড় বলে সেদ্ধ করা চানা নিয়ে ভাল করে হাত দিয়ে চটকে নিন। এর সাথে  কাচা মরিচ,পিয়াজ,ধনে পাতা কুচি,গুড়া মরিচ,লবন, ১ট ডিম ভেংগে দিন। ভালভাবে মিশান। এখন গোলাকার শেপ এ কাবাব বানান। কাবাব বানানোর পর আধা ঘন্টা রেখে দিন। এরপর ব্রেড ক্রাম্বে কাবাব গুলো গড়িয়ে নিন। একটা প্যানে তেল দিয়ে কাবাবের বল গুলো গোল্ডেন ব্রাউন হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। কেচাপ দিয়ে পরিবেশন করুন।

আম সজনে দিয়ে টেংরা মাছ

Click image for larger view

Sauce Chicken

Click Image for larger View

ভিন্ন ধরনের এগ রেসিপি এবং আমার টিপস

রেসিপি: ডিম বল

উপকরণ:  
৬টি ডিম, ১টি নারকেলের দুধ, আদা বাটা, রসুন বাটা, পোস্তদানা বাটা, কাঁচামরিচ, পেঁয়াজ কুচি, আধা কাপ খাবার তেল।

প্রস্তুত প্রণালী:

গরম কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি, আদা, রসুনসহ অন্যান্য মসলা দিয়ে দেব, সঙ্গে পরিমাণমতো লবণ। তারপর নারকেল দুধটা দিয়ে দেব কড়াইয়ে। এবার চামচ দিয়ে নাড়তে হবে কিছুক্ষণ।
এদিকে ৬টি ডিম সেদ্ধ করে সেগুলো থেকে প্রথমে কুসুম ছাড়িয়ে নিতে হবে। তারপর সাদা অংশটুকু শিল-পাটায় বেটে নিতে হবে। একপর্যায়ে কুসুমও সাদা বাটার সঙ্গে মিশিয়ে বেটে নিতে হবে।




Photo: পেস্ট করা ডিমের সাদা আর হলুদ অংশ ।
 
এরপর দুই হাতে একটু তেল মেখে নিয়ে ডিম বাটার অংশ নিয়ে ছোট ছোট বল বানাতে হবে। এ বলগুলো ফ্রাইপ্যানে নিয়ে সামান্য তেলের মধ্যে ভেজে নিতে হবে। 




 






Photo: পোস্তদানা বাটা এবং ভাজি করা ডিমবল। 
তবে এইরকম করে ভাজবেন না। টিপসে যেভাবে বলা আছে ঔভাবে ভাজবেন।



তারপর কষানো মসলায় ডিমের বলগুলো ছেড়ে দিই। কিছুক্ষণ চুলোয় রেখে ডিম বল চুলো থেকে নামিয়ে ফেলি। মুখে দিলেই দারুণ এক স্বাদ পাওয়া যাবে ডিম বলের।


আমার টিপস:
১।সাদা অংশটুকু শিল-পাটায় বেটে নিতে হবে

শিল-পাটায় না বেটে ব্লেন্ডিং মেশিনে ব্লেন্ড করে নিন। আরোও সহজ আর মসৃন পেষা হবে।

২। একপর্যায়ে কুসুমও সাদা বাটার সঙ্গে মিশিয়ে বেটে নিতে হবে। এইভাবেও করতে পারেন।
তবে কষ্ট করতে চাইলে কুসুমের সাথে অন্যান্য জিনিস মিক্স করে ডেভিলড এগস এর কুসুমের মত বানিয়ে নিয়ে , সাদা অংশের মাঝে ডেভিলড এগের কুসুম দিয়ে ডিমের মত গড়ে নিয়ে তারপর ভাজতে পারেন।

৩। ডিমের মত শেপ গড়ে নিয়ে এরপর যখন ভাজবেন তখন খুব অল্প সময়ের জন্য ভাজবেন। জাস্ট রান্নার সময় খুলে যাবেনা ঔরকম হলেই হবে। বেশি ভাজবেন তো খেতে আর মজা লাগবে না। আমি প্রথমবার বেশি ভেজে ফেলেছিলাম। পরেরবার একটু হালকা ভেজেই তুলে ফেলেছি।
আর বলের সাইজটা একটু বড় করবেন। আমার ছবি মত ছোট করবেন না।

চম্পার বাকি রেসিপিগুলোর জন্য ক্লিক করুন এখানে
Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Follow by Email